ফাইটার রোবট তৈরি করলেন নবম শ্রেণির ছাত্র জুবায়ের

আপডেট: অক্টোবর ১৯,২০১৬ ‌ | ক্যাটাগরি: মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক

রাজধানীর আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র সানী জুবায়ের এক সয়ংক্রিয় ফাইটার রোবট তৈরি করেছে। জুবায়ের ইতিমধ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাইন্স মেলায় অংশ নিয়ে একাধিক বার প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

নতুন তৈরি রোবট সম্পর্কে জানতে চাইলে জুবায়ের জানায়, এটি হল এমন একটি রোবোট কার যার মাধমে সেনাবাহিনীরা সরাসরি বিভিন্ন অভিযানে পাঠাতে পারবে। এটি সরাসরি যুদ্ধক্ষেত্রে সৈন্যদের সহযোগীতা করতে পারবে।

বর্তমানে জঙ্গি তৎপরোতায় সেনাবাহিনীদের জন্য এবং আমার দেশের সেনাবাহিনীদের যুদ্ধক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য আমি এই রোবটটি তৈরি করেছি এবং এটার উপরে গবেষণা চালিয়েছি।

রোবটটি যুদ্ধক্ষেত্রে সেনাবাহিনীদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেওয়ার জন্য ব্যবহৃত হবে। এতে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম। এতে লাগানো রয়েছে স্বয়ঃক্রিয় ফায়ারিং সিস্টেম। লক্ষ্যবস্তু ঠিক করে দিতে হবে কম্পিটার দিয়ে বিভিন্ন কোনে ফায়ার করা যাবে।

যখন সেনাবাহিনীরা কমান্ড দিবে তখন রোবট থেকে স্বয়ংক্রিয় ভাবে ফায়ার হবে। এতে রয়েছে অজ্ঞান করার জন্য বিশেষ স্প্রে, যা কোন স্থানে ছাড়া হলে নির্দিষ্ট আত্ততার মধ্যে যারা আছে তারা অজ্ঞান হয়ে পরবে।

মূলত বিনা রক্তপাতে কোন শত্রুকে ধরার জন্য তা ব্যবহৃত হবে। রোবটটি নিজ সুরক্ষা দেয়ার জন্য অগ্নিশিখা বের করতে পারবে। এটি যাতে পানিতে চলতে পারে এজন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। বাতাসের চাপকে কাজে লাগিয়ে এটি পানিতে চলতে পারবে। আর এখানে ব্যবহৃত ব্রাসলেস মটর।

কোন ব্যাক্তি জীবিত নাকি মৃত তা নিশ্চিত করতে পারবে এই রোবটটি। এই রোবটরির মধ্যে থাকবে একটি ছোট স্পাইকার।

রোবটটির অবস্থান জানার জন্য জিপিএস ব্যবহৃত হয়েছে এবং রোবটটি কোথায় চলছে তা নির্ধারনের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে ওয়েব ক্যাম, এই ওয়েব ক্যাম ৩৬০ তে ঘুরতে সক্ষম। এখানে ব্যবহৃত হয়েছে রোবোটিক বম ড্রোপার, যা ৩.০৫ সেকেন্ডে একটি বোমাকে মাটিতে ফেলতে পারবে।

এই রোবটটিতে রয়েছে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য রোবোটিক ফাস্ট এইড বক্স। বক্সে থাকবে বিভিন্ন মেডিসিন এবং আঘাতে দ্রুত চিকিৎসার জন্য থ্রেরাপি মেশিন।

তড়িৎ প্রবাহের জন্য ব্যবহৃত হবে সোলার এবং লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারী। রোবটটিতে ব্যবহৃত হয়েছে এক ধরনের ভয়েস ট্রাপিং সিস্টেম। এই সিস্টেমটি শত্রুদের ধোকা দিতে সক্ষম। এই রোবটটিতে লাগানো রয়েছে মেটাল ডিটেক্টর। আর তথ্যের বাড়তি সুরক্ষা দিতে ব্যবহৃত হয়েছে ড্রোন।

গাড়িটি সেনাবাহিনীদের আওতার মধ্যে আসলেই তারা তা টের পাবে একটি বিশেষ সিগন্যাল এর মাধ্যমে যা শুধু সেনাবাহিনীরাই দেখতে পারবে। এ কাজ গুলো ইতেমধ্যে শেষ হয়েছে। বিজ্ঞান মেলায় সুযোগ পেলে সকল কিছু প্রদর্শন করাতে পারবো।

আমি এখানে বিজ্ঞানের বিভিন্ন সূত্রের সহযোগিতা নিয়েছি। যেমন, আলোর প্রতিফলন, নিউটনের তৃতীয় সূত্র, বিভিন্ন সেন্সরের কার্য পদ্ধতি, ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য উপাত্তকে বিশ্লেষণ করেছি আমি এই রোবটটি সম্পূর্ন রূপে বাস্তবায়ন করেছি।

সমাজের বিভিন্ন সমস্য সমাধান করতে আগ্রহী জুবায়ের। পড়ালেখার পাশাপাশি চালিয়ে যাচ্ছে বিজ্ঞান চর্চা। জুবায়ের বাবা নাসির উদ্দিন এবং মায়ের নাম শাহানা আফরোজ। জুবায়ের ইতিমধ্যে বুয়েট কলেজ, বিএফ শাহীন কলেজ, উইলস্ লিটল ফ্লাওয়ার কলেজ বিজ্ঞান মেলা এবং আইডিয়াল বিজ্ঞান মেলায় অংশ নিয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

সুত্রঃ দৈনিক শিক্ষা

ক্যাটাগরি

সাম্প্রতিক তথ্যসমূহ