চবির ছয় শিক্ষার্থী বহিষ্কার

আপডেট: অক্টোবর ১৮,২০১৬ | 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) বিভিন্ন সময়ে অপরাধের কারণে ছয় শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধূরী বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ১৭ই অক্টবর থেকে বহিষ্কারাদেশ কার্যকর হয়েছে।

বহিষ্কৃতরা হলেন পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের নিয়াজ আবেদীন পাঠান, অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের লোকমান হোসেন, যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের আব্দুল্লাহ আল কায়সার, চারুকলা বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের আনোয়ার হোসেন, লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষার্থী আহমেদ আলী, চারুকলা অনুষদের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী দিপ্র বনিক।

গত ২৮ই সেপ্টেম্বর শাখা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও ভিএক্স পক্ষের নেতা মিজানুর রহমান বিপুলকে আহত করার ঘটনায় জড়িত দুই শিক্ষার্থী নিয়াজ আবেদীন পাঠান এবং লোকমান হোসেনকে পৃথকভাবে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

৪ অক্টবর মঙ্গলবার ছাত্রলীগের উপ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও বগী ভিত্ত্বিক সংগঠন একাকার পক্ষের নেতা মাহবুব শাহরিয়ার শাহীনকে ঢাকা হোটেলের সামনে আহত করার ঘটনায় জড়িত থাকা তিন শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল কায়সার, আনোয়ার হোসেন এবং আহমেদ আলীকে পৃথকভাবে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

৭ অক্টবর শুক্রবার সকালে চারুকলা অনুষদের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের রনি চন্দ্র সরকারকে আহত করার ঘটনায় জড়িত একই অনুষদের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী দিপ্র বনিকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

বহিষ্কৃতরা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে থাকতে পারবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রক্টর আলী আজগর চৌধূরী বলেন, তারা গোপনে থাকলে আমাদের কিছু করার নেই। আমরা জানতে পারলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুত্রঃ দৈনিক শিক্ষা

সাম্প্রতিক তথ্যসমূহ